TOTAL PAGEVIEW

যে কোন এপ্স সহজেই ক্লোন করতে পারবেন।

আমাদের দেশের অধিকাংশ স্মার্ট ফোন ইউজারই এন্ড্রয়েড ইউজার।
আর যার অধিকাংশই দুই সিম বা ডুয়েল সিম সাপোর্ট করে।
ডুয়েল সিম সাপোর্ট করলেও স্মার্ট ফোন গুলোতে একি এপস দুইটা ইউস করা যায় না। কিন্তু দেখা যায় অনেক সময় একি এপস দুই বা তার অধিক প্রয়োজন হয়ে পরে। যেমন ধরুন “ফেসবুক” এপস টি বা “ম্যাসেঞ্জার” এপসটি।
আমাদের অনেকের একের অধিক ফেসবুক আইডি থাকে। কিন্তু একের অধিক ফেসবুক এপ্স ব্যবহার করা সম্ভব নয় একি ফোনে।
আজ তাই আপনাদের জন্য আমি নিয়ে এলাম এমন একটি এপস যার মাধ্যমে আপনি সহজেই যে কোন এপ্স সহজেই ক্লোন করতে পারবেন।
আর ইউজ করতে পারবেন একের অধিক যেকোন আইডি। একি সাথে আপনি এই এপ্স দিয়েই আপনার ক্লোন করা এপ্স গুলোর আইকোন ও নাম চেঞ্জ করে নিতে পারবেন। যার ফলে আপনি সহজেই বুঝতে পারবেন কোনটি আসল এপ্স কোনটি ক্লোন।
এর নাম App Cloner
আর আমি আপনাদের যেই লিংকটি দিচ্ছি তা এই এপের প্রিমিয়াম ভার্সন। যা সম্পুর্ন ফ্রীতে।
এপটি ইউজ খুবিই সহজ তবুও যদি না বুঝে থাকেন তবে ইউটিউবে ভিডিওটি দেখতে পারেন। এর ফলে আপনার কাছে আরো সহজ বধ্য হয়ে এপটি ইউজ করা।
Read more ...

এস.এস.সি ২০১৭ পরীক্ষার রেজাল্ট দেখুন এক ক্লিকে। SSC 2017 Exam Result


২০১৭ সালের মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমানের পরীক্ষায় পাসের হার ও জিপিএ-৫—দুটোই কমেছে।
এবার ১০টি শিক্ষা বোর্ডে পাসের হার ৮০ দশমিক ৩৫ শতাংশ। গতবার এই হার ছিল ৮৮ দশমিক ২৩ শতাংশ।
এবার এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ লাখ ৪ হাজার ৭৬১ জন পরীক্ষার্থী। গতবারের চেয়ে এই সংখ্যা কমেছে পাঁচ হাজার।
আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে এই পরীক্ষার ফলাফলের অনুলিপি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে তুলে দেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। এ সময় বিভিন্ন বোর্ডের চেয়ারম্যানরা উপস্থিত ছিলেন।
পরে পরীক্ষার ফলাফলের বিষয়ে সংক্ষিপ্ত তথ্য জানান শিক্ষামন্ত্রী।




http://www.alleducationboardresult.com/



নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, এবার ১০ বোর্ডে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১৭ লাখ ৮১ হাজার ৯৬২ জন। পাস করেছে ১৪ লাখ ৩১ হাজার ৭২২ জন।
মন্ত্রী জানান, এবার আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এসএসসি পরীক্ষায় গড় পাসের হার ৮১ দশমিক ২১ শতাংশ। গতবার এই হার ছিল ৮৮ দশমিক ৭০ শতাংশ। অর্থাৎ, এবার পাসের হার কমেছে ৭ দশমিক ৪৯ শতাংশ।
এবার আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ কিছুটা বেড়েছে বলে জানান মন্ত্রী। গতবারের চেয়ে এবার ১ হাজার ১৯৫ জন বেশি জিপিএ-৫ পেয়েছে।
এবার আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এসএসসি পরীক্ষায় মোট জিপিএ-৫ পেয়েছে ৯৭ হাজার ৯৬৪ জন।
এবার দাখিলে পাসের হার ৭৬ দশমিক ২০ শতাংশ, যা গতবার ছিল ৮৮ দশমিক ২২ শতাংশ। অর্থাৎ, এবার পাসের হার কমেছে ১২ দশমিক শূন্য ২ শতাংশ।
এবার কারিগরি বোর্ডের অধীনে এসএসসি (ভকেশনাল) পরীক্ষায় পাসের হার ৭৮ দশমিক ৬৯ শতাংশ। এই হার গতবার ছিল ৮৩ দশমিক ১১ শতাংশ।
এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল আজ প্রকাশ করা হচ্ছে। এর মাধ্যমে এসব পরীক্ষার প্রায় ১৭ লাখ ৮৬ হাজার পরীক্ষার্থীর অপেক্ষা শেষ হবে।
আজ দুপুর সাড়ে ১২টায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলনে ফলাফলের বিস্তারিত জানানো হবে। বেলা দুইটায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ওয়েবসাইট ও মুঠোফোনে নির্ধারিত পদ্ধতিতে ফলাফল প্রকাশ করা হবে।
গত ২ ফেব্রুয়ারি এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয়ে লিখিত পরীক্ষা শেষ হয় ২ মার্চ।
Read more ...

যেভাবে আপনার Android মোবাইলের পারফরমেন্স স্পীড বাড়াবেন

বর্তমানে সবার হাতে হাতেই স্মার্টফোন। আমাদের জীবনের অনেক কঠিন কাজকেই সহজ করে দিয়েছে এই স্মার্টফোন নামক যন্ত্রটি। কিন্তু কিছু দিন ব্যবহার করার পরই যেন আমাদের স্মার্টফোন স্লো হওয়ার শুরু হয়। এর প্রধান কারণ গুলো হল অনেক বেশি অ্যাপ ইন্সটল করা, যার্ম কম থাকা এবং ফোনের স্পেস বেশি ব্যবহার করা। ত কিভাবে এই যন্ত্রটিকে সবসময় ফাস্ট এবং স্মোথ রাখা যায়?

https://www.youtube.com/watch?v=gXu0ayPPS10
Read more ...

Facebook Single Name করে নিন খুব সহজে এবং স্বাভাবিক পদ্বতিতে যেটা আপনার ভালো হবে।

আসলে আমরা স্বাভাবিক প্রক্রিয়াই ফেসবুকে সিঙেল নাম করতে পারি না।সত্যি কথা বলতে কি বাংলাদেশে বসে সম্ভব ও না ফেসবুকে সিঙ্গেল নাম করা। তাই আমরা ফেসবুক সিঙ্গেল নাম করতে বিভিন্ন পথ অবলম্ভণ করি।তার মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় পদ্বতি হচ্ছে INDONESIA IP দিয়ে করা।আজকের টিউনে আমি কিভাবে INDONESIA IP দিয়ে করতে হয় তা দেখাবো।তবে বলে রাখি আমি এই কাজটি Mozila Firefox দিয়ে করব।অনেকে ভাবতে পারে Mozila Firefox তো কম্পিউটার আপ্স তাদের বলব Mozila firefox Android ও পাওয়া যায় গুগল প্লেস্টোর থিকে নামাই নিতে পারেন।

কাজের পদ্বতিঃ

  1. Mozila FireFox ওপেন করবেন।তারপর ফেসবুকে চলে যাবেন।ফেসবুকে গিয়ে “General Account Settings“ যাবেন।
  2. ভাষা পরিবর্তন করে নিবেন এভাবে language settings to “Bahasa Indonesia“.
  3. এই সাইট থিকে Indonesia এর IP নিবেন।http://www.proxynova.com/proxy-server-list/country-id/
  4. Select Proxy country=Indonesia, port=808০ এখান থিকে আপডেট proxy address নিবেন এবং proxy port নিবেন 8080
যদি আপনার কাজ দেখেন হচ্ছে না তাহলে অন্য proxy address নিয়ে কাজ করবেন।বার বার ট্রাই করবেন হয়ে যাবে।

Mozila FireFox এর কিছু সিটিংস

  • mozila firefox open করে Go to Tools > Options > Advanced > Network > Settings. চলে যাবেন।


  • এখন আপনি “Manual proxy configuration:” বক্স টাইপ করবেন।এখানে আপনি Proxy address and proxy port http://www.proxynova.com/proxy-server-list/country-id/ এই সাইট থিকে নিয়ে পাস্ট করবেন।

  • এখন আপনি চলে যাবে Name settings এখান থিকে আপনার first নাম শুধু টাইপ করবেন মানি সিঙ্গেল যে নাম দিতে চান শুধু সেই নামেই দিবেন।
  • এখন আপনি ্সেভ ক্লিক দিয়ে পাসওয়ার্ড টাইপ দিলে কাজ শেষ।এখন আবার সেটিংস থিকে ফেসবুক এর ভাষা ইংলিশ করে দিবেন এবংFirefox Settings and select “Use system proxy setting“ তাহলেই আপনার কাজ সম্পুর্ণ শেষ।
Read more ...

পে পার ডাউনলোড: ফাইল ডাউনলোড করে আয় করার নির্ভরযোগ্য একটি ওয়েবসাইট

পে পার ডাউনলোড কী?

পিপিডি বা পে পার ডাউনলোড এফিলিয়েট মার্কেটিং-এ খুব টপ একটি বিষয়। যারা এফিলিয়েট নিয়ে কাজ করেন তাদের পছন্দের তালিকার শীর্ষে থাকে এটা যখন কাজ শুরু করেন। অর্থাৎ যারা এফিলিয়েট নিয়ে মাত্র কাজ শুরু করতে চাচ্ছেন বা যাচ্ছেন তাদের জন্য পিপিডি চমৎকার একটি পদ্ধতি। কারণ এখানে সফল হওয়ার সম্ভাবনা ১০০% এবং খুব সহজেই কাজ করা যায়। কোনোরকম পূর্ব অভিজ্ঞতা বা কাজ না জানলেও পিপিডি নিয়ে কাজ করতে পারবেন আপনি।

কীভাবে শুরু করবো?

ডাউনলোডের মাধ্যমে আয় করার জন্য শেয়ারক্যাশ সবচেয়ে জনপ্রিয়। শেয়ারক্যাশ থেকে ডাউনলোড করলে প্রতি ডাউনলোড-এ $৩-$১০ দিয়ে থাকে, এক্ষেত্রে কান্ট্রি বিবেচনা করা হয়। অর্থাৎ যুক্তরাষ্ট্র থেকে ডাউনলোড করলে $৮-$১০ এবং  বাংলাদেশ অথবা এশিয়ার কোন কান্ট্রি থেকে ডাউনলোড করলে $৩-$৭ পে করে। শেয়ারক্যাশ এ একাউন্ট খুলতে এখানে ক্লিক করুন। প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে register করুন(ফেচবুক/জিমেইল আইডি খুলার মত)। register শেষে ইমেইল ভেরিফাই করুন। এরপর  লগ ইন করে শেয়ারক্যাশ ড্যাশবোর্ড-এ ঢুকুন। নিচের মত চিত্র দেখতে পাবেন।

 চিত্র অনুযায়ী, প্রথমে content library এ ক্লিক কুরুন, এরপর ebooks এ, এরপর browse categories এ. 
এখান থেকে Picture অপশন এ ক্লিক করে যেকন একটি ফাইলের ডানে + চিহ্নে ক্লিক করুন। এবার নিচের চিত্র দেখুন। চিত্র অনুযায়ী ক্লিক করে ফাইলটির লিঙ্ক কপি করে ছড়িয়ে দিন। ওই লিঙ্কে ক্লিক করে কেউ ডাউনলোড করলে আপনি পেমেন্ট পাবেন।


Read more ...

শ্রীলঙ্কাকে বাংলাওয়াশ করতে পারলেই মিলবে পাঁচ রেটিং পয়েন্ট। T20

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজ ১-১ ব্যবধানে এবং তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ সমান ব্যবধানে ‘ড্র’ হয়েছে। এবার দুই ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজে মুখোমুখি লড়াইয়ে মাঠে নামবে উভয় দল। বাঘ-সিংহের পূর্ণাঙ্গ সিরিজের এই শেষ লড়াই শুরু হচ্ছে আজ।
মঙ্গলবার শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বোর আর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে দ্বিপাক্ষিক দুই ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচটি মাঠে গড়াবে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায়। ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে চ্যানেল নাইন, বিটিভি, টেন স্পোর্টস, টেন-৩ ও টেন-১ এইচডি।
এদিকে শ্রীলঙ্কাকে টি-টোয়েন্টি সিরিজে ২-০ তে অর্থ্যাৎ বাংলাওয়াশ করতে পারলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) র‌্যাঙ্কিংয়ে পাঁচ রেটিং পয়েন্ট উন্নতি হবে টাইগারদের। আইসিসি টি-টোয়েন্টি র‌্যাঙ্কিংয়ে ৭২ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে বর্তমানে বাংলাদেশের অবস্থান তালিকার দশম অবস্থানে। তবে এক্ষেত্রে র‌্যাঙ্কিংয়ে কোন রদবদল হবেনা বাংলাদেশের। কিন্তু বাংলাওয়াশে পাঁচ রেটিং পয়েন্ট বেড়ে ৭৭ রেটিং পয়েন্টে উন্নতি করবে বাংলাদেশ। আর একই ব্যবধানে হারলে রেটিং পয়েন্ট কমে দাঁড়াবে ৭১ এ।
অন্যদিকে, ১০ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে শ্রীলঙ্কার অবস্থান আইসিসি পয়েন্ট তালিকার অষ্টম স্থানে। এই সিরিজটি যদি শ্রীলঙ্কা ২-০ ব্যবধানে জিতে নিতে পারে তাহলে শ্রীলঙ্কার রেটিং পয়েন্ট ১০১ থেকে গিয়ে দাঁড়াবে ১০২ এ। কিন্তু টাইগারদের বিপক্ষে যদি হেরে যায় সেক্ষেত্রে রেটিং পয়েন্ট কমে হবে ৯৬। তবে সিরিজ ‘ড্র’ হলে রেটিং পয়েন্টে কোন প্রভাব ফেলবেনা বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার
Read more ...

বিশ্বের রহস্যময় ঘটনা : এরিয়া ৫১:

এটি হল আমেরিকানদের চরম একটি গোপনীয় সামরিক ঘাটি। আজ পর্যন্ত কোন সাধারণ মানুষ এর পক্ষে এর ভিতরে ঢুকা সম্ভভ হয়নি। এই ঘাটির আসল কাজ কি সেটা জানতে চেয়েও আজও মেলেনি আমেরিকান সরকারের কাছে এর সঠিক উত্তর। এই ব্যাপরটি নিয়ে কোন প্রশ্ন এলেই সবাই এড়িয়ে যায়। এই ঘাটির কাছাকাছি মাঝে মাঝেই অদ্ভূত সব আকাশযান দেখতে পাওয়া যায় । পৃথিবীর কোন আকাশযানের সাথে এর কোন প্রকার মিল নেই। অপরিচিত কাউকে দেখা মাত্রই গুলি করা হবে এরকম নির্দেশ ঝোলানো আছে এই ঘাটির চারপাশে। ভিতরে কি আছে বা কি হচ্ছে এর ভিতরে, কোনভাবেই অন্য কোন মানুষর এর পক্ষে তা জানা সম্ভব নয়। অনেকে ধারণা করে যে এলিয়েনরা পৃথিবীর সাথে নিয়মিত যোগযোগ করেছে। নিয়মিত তারা আসছে পৃথিবীতে। আর তাদের সেই আস্তানা হলো এই এরিয়া ৫১ পৃথিবীর মানুষরা যাতে ভুলেও কোন কিছু দেখতে বা জানতে না পারে সেজন্যই সেখানে এত গোপনীয়তা রাখা হয় ।
Read more ...

বারমুডা ট্রায়াঙ্গেল বিশ্বের রহস্যময় ঘটনা গুলোর মধ্যে অন্যতম

যুগ যুগ ধরে চির রহস্যময় একটি জায়গা হল বারমুডা ট্রায়াঙ্গেল। আজও মানুষ এর রহস্য উদঘাটন করা সম্ভব হয়নি, কেন এর কাছাকাছি কোন যাত্রীবাহী জাহাজ অথবা উড়োজাহাজ গেলে আর খুঁজে পাওয়া যায় না? কেন এর কাছাকাছি গেলে মানুষ সব অদ্ভুত অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়? একদল গবেষক মনে করেন এই সমুদ্রের নীচে রয়েছে অন্য গ্রহের মানুষের বসবাস, তারাই এই সকল ঘটনার জন্য দায়ী। আবার অনেকে মনে করেন হয়তো কোন অদ্ভুত কারণে পৃথিবীর সাথে বাইরের কোন গ্রহের অদৃশ্য একটি দরজা সৃষ্টি হয়েছে। হয়ত এসকল জাহাজ বা প্লেন সেই অদৃশ্য দরজার ফাদে পড়ে চলে যায় অন্য কোন গ্রহে।

Read more ...

বাংলাদেশের জানা অজানা ৪টি রহস্যময় ঘটনা !

রহস্য ভরা এ পৃথিবীর অনেক রহস্য আছে যার সঠিক কোন উত্তর কারো কাছে নেই । বাংলাদেশেও আছে এমন রহস্যাবৃত কিছু স্থান । তাই আপনাদের  জন্য  ভয়ঙ্কর রহস্যময় পৃথিবী খুঁজে বের করলো সেই ঘটনাগুলো। দেখে নেই বাংলাদেশের জানা অজানা ৪টি রহস্যময় ঘটনা !

১। গানস অফ বরিশালঃ
গুগলে লিখে সার্চ দিলেই পাবেন। বরিশালে ব্রিটিশরা আসার সময় এর নাম ছিল বাকেরগঞ্জ। বাকেরগঞ্জের তৎকালীন এক ব্রিটিশ সিভিল সার্জন প্রথম ঘটনাটি লেখেন। বর্ষা আসার আগে আগে গভীর সাগরের দিক থেকে রহস্য ময় কামান দাগার আওয়াজ আসতো। ব্রিটিশরা সাগরে জলদস্যু ভেবে খোজা খুজি করেও রহস্যভেদ করতে পারে নাই।
২। চিকনকালা :
মুরং গ্রামটা বাংলাদেশ-বার্মা নো ম্যানস ল্যান্ডে। কাছের মুরং গ্রামের চিকনকালার লোকেরা বলে প্রতিবছর নাকি (দিনটা নির্দিষ্ট না) হঠাৎ বনের ভিতর রহস্যময় ধুপ ধাপ আওয়াজ আসে। শিকারীরা আওয়াজটা শুনলেই সবাই দৌড়ে বন থেকে পালিয়ে আসে। কিন্তু প্রতিবছরেই কয়েকজন পিছে পড়ে যায়। যারা পিছে পড়ে তারা আর ফিরে আসে না। কয়েকদিন পরে বনে তাদের মৃত দেহ পাওয়া যায়। শরীরে আঘাতের চিহ্ন নেই। শুধু চেহারায় ভয়ঙ্কর আতঙ্কের ছাপ।
৩। বগা লেকঃ
কেওকারাডং এর আগে রুপসী বগা লেক। বম ভাষায় বগা মানে ড্রাগন। বমদের রুপকথা অনুযায়ী অনেক আগে এই পাহাড়ে এক ড্রাগন বাস করতো। ছোট ছোট বাচ্চাদের ধরে খেয়ে ফেলতো। গ্রামের লোকেরা ড্রাগনকে হত্যা করলে তার মুখ থেকে আগুন আর প্রচন্ড শব্দ হয়ে পাহাড় বিস্ফোরিত হয়। রুপকথার ধরন শুনে মনে হয়, এটা একটা আগ্নেয়গীরির অগ্ন্যুতপাত। উপজেলা পরিষদের লাগানো সাইনবোর্ডে সরকারী ভাবে এই রহস্যের কথা লেখা। এখনো এর গভীরতা কেউ বলতে পারে না। ইকো মিটারে ১৫০+ পাওয়া গেছে। প্রতিবছর রহস্যময় ভাবে বগা লেকের পানির রঙ কয়েকবার পালটে যায়। যদিও কোন ঝর্না নেই তবুও লেকের পানি চেঞ্জ হলে আশপাশের লেকের পানিও চেঞ্জ হয়। হয়তো আন্ডার গ্রাউন্ড রিভার থাকতে পারে। কিন্তু বগা লেকের এই রহস্য ভেদ হয়নি এখনো।
৪। সোয়াচ অফ নো গ্রাউন্ড:
মেঘনা নদী যেখানে সাগরে মিশেছে জায়গাটাকে বলে সোয়ার্জ অফ নো গ্রাউন্ড বা অতল স্পর্শী। গাঙ্গেয় ব-দ্বীপ গঠনের পর থেকেই দু’মুখী স্রোতের ঠেলায় তলার মাটি সরে যাচ্ছে ক্রমে ক্রমে। এখানে গভীরতা পরিমাপ করা যায়নি।
Read more ...

গুগল ক্যামেরায় বনানী কবরস্থানে ‘ফাঁসিতে’ ঝুলন্ত মানব: আসল ঘটনা কী?

গুগল ম্যাপের স্ট্রিট ভিউ এ বনানী কবরস্থানের সামনের দেওয়ালের ওপরে ঝুলন্ত জিনিসটা দেখার পর থেকেই মাথাটা ঝিম ঝিম করছিল। মাথায় কেবলই ঘুড়ে বেড়াচ্ছিল, কী হতে পারে এটা!!! গুগল ম্যাপতো আর অন্য কেউ এডিট করতে পারেনা। তাহলে!?
অফিসের এক কলিগ বলছিলেন, ‘ভাই একটা লিংক পাইছি, দেখেন তো বিষয়টা কী? আমি তো কিছুই বুঝতেছিনা। ফেসবুকে ব্যাপক আলোচনা হচ্ছে এ নিয়ে। ’
আমিও একটু কৌতুহলী হয়ে লিংকটা নিলাম এবং ব্রাউজ করে সত্যিই একটা ধাক্কা খেলাম। গুগল কারের ক্যামেরায় ধারণ করা স্ট্রিট ভিউ-এ স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে বনানী কবরস্থানের বাউন্ডারি ওয়ালের ওপরে  সাদা পাঞ্জাবী, কালো প্যান্ট এবং পায়ে কালো জুতো পড়া মানুষের অবয়বে কিছু একটা গাছের সাথে ঝুলানো আছে।
একটু স্পষ্ট করেই বলি, দেখে সত্যি মনে হচ্ছে কেউ যেন গলায় দড়ি দিয়েছে। ছবিটা জুম করে বিভিন্নভাবে দেখলাম। গলার দড়িটাও স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে! তবে খুব আশ্চর্যজনকভাবে রাস্তায় লোকজনের চলাফেরা খুব স্বাভাবিক মনে হচ্ছে! 
এত বড় একটা ঘটনা ঘটলে যেমন মানুষের জটলা হওয়া উচিত, তেমন নয়। পাশ দিয়ে হেঁটে যাওয়া রাস্তার কৌতুহলী মানুষের দৃষ্টি দড়ি থেকে ঝুলতে থাকা ‘মানুষটির’ দিকে নয়, বরং গুগল কারের দিকেই- সেটা বোঝা যাচ্ছে। কিন্তু কেন? মানুষ কি এতটাই নিস্পৃহ হয়ে গেল এমন ভয়াবহ ঘটনার বিষয়ে! এটাও কি সম্ভব?
চিন্তা আর বিশ্লেষণের ঝড় বয়ে গেল মাথায়। কয়েকটা প্রশ্ন আসল মাথায়, তাহলে ঘটনা কি এমন যে বস্তুটা ঝুলছে সেটা খালি চোখে দেখা যাচ্ছে না বা এমন কোনো তুচ্ছ বিষয় যেটার দিকে তাকিয়ে দেখার কিছু নেই।  
এরই মধ্যে অফিসের সবার মাঝে এটি একটি ‘গুরুতর’ ইস্যু হয়ে উঠেছে। হাতের গুরুত্বপূর্ণ কাজ ফেলে এসেও এক ঝলক দেখে মন্তব্য করে যাচ্ছে কলিগরা। কেউ আবার মন্তব্য করতে গিয়ে আমতা আমতা করছেন। মোট কথা, ইস্যুটা নিয়ে বেশ আলোচনা চলতে থাকলো। কেউ সহজ সমাধান দিচ্ছে, বলছে, ভাই এইটা ভূত, কেউ বলে ভাই ভূত আবার কী জিনিষ!
কেউ বলছে, যতো যাই বলেন, এটা ফটোশপ করা হইছে। গুগুল সবাইরে মামু বানাইতে এই প্লান করছে। পরে বলবো- গ্রাহকদের বুদ্ধিমত্তা পরীক্ষা করলাম। হে...হে... 
মোট কথা আলোচনা বেশ জমজমাট। কিন্তু রহস্য উন্মোচন হচ্ছে না... এটাই অস্বস্তিকর লাগছে।  
আমি ভাবছি অন্য কথা! এতবড় একটা বিষয় গুগলের চোখ এড়ালো কী করে? সাধারণত গুগল নিরাপত্তাজনিত কারণে স্ট্রিট ভিউতে থাকা মানুষের চেহারা, গাড়ির নম্বর, বাড়ির নম্বর এগুলোকে অষ্পষ্ট করে দেয়। সেই টেক জায়ান্ট গুগল রাস্তার পাশে ফাঁসিতে ঝুলে থাকা একজন মানুষের ৩৬০ ডিগ্রি ছবি রেখে দিয়েছে!!!
এবার ছবিটিকে বারবার বিভিন্ন অ্যাঙ্গেল থেকে ঘুড়িয়ে দেখতে থাকি। দড়ি থেকে ঝুলছে এটা পরিষ্কার। সাদা পাঞ্জাবী, প্যান্ট আর বুট পায়ে- এসবও পরিষ্কার। তাহলে! এসময় একজন বললেন- ফাঁসিতে ঝুললে তো একটা মানুষের পায়ের নিচের অংশও নিম্নমুখী হয়ে থাকে অর্থাৎ পায়ের আঙুলের দিকটা নিচের দিকে থাকে। কিন্তু এই ছবিতে দেখা যাচ্ছে জুতো পরা পা দুটি মনে হয় মাটিতে দাঁড়ানো অবস্থায় আছে।  
কথাটা ঠিক।
কিন্তু আবার সন্দেহ হলো- তাহলে কি কাঁচের ওপরে পা দুটো দাঁড় করিয়ে রাখা হয়েছে?
এসব ভাবছি আর ঘুড়িয়ে ঘুড়িয়ে দেখছি ৩৬০ ডিগ্রির ছবিটি। এসময় আরেকটি বিষয় নজরে এলো। ‘ফাঁসিতে ঝুলে থাকা’ লোকটার হাত দুটোও ঝুলে নেই, পাশে একটু যেন ছড়ানো- তবে এটা অস্পষ্ট।  
এবার, আবার শুরু থেকে শুরু করলাম ছবিটিকে এবং এমন একটি অ্যাঙ্গেলে মাউস আনলাম- যেখান থেকে বিষয়টি অন্যরকম মনে হলো- হ্যাঁ, এটা কোনো মানুষ না- এটা হচ্ছে একটা কুশপতুল বা কুশপত্তলিকা (effigy)। রাজনৈতিক আন্দোলনে বা যে কোনো বিক্ষোভ-সমাবেশে কোনো ব্যক্তির বিরুদ্ধে ক্ষোভ জানাতে হলে তার একটা প্রতিকী পুতুল তৈরি করে তাতে জুতো, ঝাটা মারা হয়, আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়, এমনকি ওই পুতুলকে প্রতিকী ফাঁসিতেও ঝোলানো হয়।
এসময় চেক করে দেখলাম ছবিটি ২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারি মাসের। জানা গেল, ওই সময়ে দেশজুড়ে যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির দাবিতে আন্দোলন, বিশেষ করে শাহবাগের আন্দোলন তুঙ্গে ছিল। এর পর ছিল হেফাজতের ঘটনা। যেটা ধারণা করা গেল, ওই সময়ে কোনো মিছিল বা বিক্ষোভে সম্ভবত এই কুশপুতুলটি ব্যবহার করা হয়। পরে কেউ এটাকে কবরস্থানের পাশের গাছে ঝুলিয়ে দেয়- হয়তো বা।  
Read more ...

পিঁপড়া সম্পর্কে অজানা কিছু মজার তথ্য

১। পিঁপড়ার কান নেইঃ
মানুষের মত পিঁপড়ার কিন্তু কান নেই! তাহলে এরা শোনে কিভাবে? ওদের হাঁটু আর পায়ে আছে বিশেষ সেন্সিং ভাইব্রেশনস। যার মাধ্যমে তারা আশেপাশের পরিস্থিতি বুঝতে পারে। পিঁপড়ার আবার হাঁটু! ভাবতেই হাসি পায় তাইনা?

২। সর্ব বৃহৎ মস্তিষ্কের অধিকারীঃ
পোকামাকড়দের মাঝে সবচেয়ে বড় মস্তিষ্কের অধিকারী হল পিঁপড়া। অন্যান্য প্রাণীদের তুলনায় এদের মস্তিষ্কে প্রায় ২৫০,০০০ টি কোষ বেশি রয়েছে।
৩। পিঁপড়ার পাকস্থলী রয়েছে দুইটিঃ
আমাদের এত বড় শরীরে একটি পাকস্থলী থাকলেও পিঁপড়ার ছোট শরীরে কিন্তু পাকস্থলী রয়েছে দুইটি!
৪। কিছু পিঁপড়া অযৌন প্রজনন ঘটায়ঃ
পিঁপড়ার কিছু প্রজাতি রয়েছে যাদের বংশবিস্তার করতে যৌনপ্রজনন প্রয়োজন হয়না। বিশেষ এক ক্লোনিং প্রক্রিয়ায় এরা বংশবিস্তার করে। নিষিক্ত ডিম নারী পিঁপড়ের দেহে বেড়ে উঠে আর অনিষিক্ত ডিম পুরুষ পিঁপড়ের দেহে।
৫। পিঁপড়ারা সবচেয়ে বড় উপনিবেশ তৈরি করতে পারেঃ
ধারণা করা হয় যে পিঁপড়েদের করা সবচেয়ে বড় উপনিবেশ ছিলো প্রায় ৩,৬০০ মাইল এর! এই উপনিবেশ ইতালি, ফ্রান্স, স্পেনের মত বড় দেশগুলোর উপর দিয়েই গিয়েছে। আর এই উপনিবেশ তৈরি করে আর্জেন্টিনার একটি পিঁপড়ার প্রজাতি।
৬। সর্বত্র বিরাজমানঃ
পৃথিবীর প্রায় সব দেশেই রয়েছে পিঁপড়া। কেবলমাত্র এন্টার্টিকা ও এ ধরনের কয়েকটি জায়গায় পিঁপড়া নেই। পিঁপড়া প্রায় যেকোনো বাস্তুসংস্থানে বিকাশ লাভ করতে পারে এবং এরা ভূমিগত বায়োমাসের প্রায় ১৫-২৫% গঠন করে। তাদের এই সাফল্যের কারণ হল তাদের সামাজিক সংগঠন, দ্রুত বাসস্থান পরিবর্তনের ক্ষমতা, রসদ জোগাড় করার দক্ষতা এবং নিজেদের রক্ষা করার পারদর্শিতা।
৭। সবচেয়ে বড় পিঁপড়াঃ
সবচেয়ে বড় পিঁপড়াগুলো সাধারণত ৩ থেকে ৫ সেন্টিমিটার লম্বা হয়। তবে পুর্বে যেসব পিঁপড়া ছিলো তাদের কিছু কিছু ৬ সেন্টিমিটার লম্বাও ছিলো।
৮। বন্যায় দিব্যি বেঁচে থাকতে পারে পিঁপড়াঃ
পিঁপড়াকে মারার জন্য আমরা সাধারণত পানির আশ্রয় নেই। অথচ জেনে অবাক হবেন পিঁপড়ারা দিব্যি বন্যায় বেঁচে থাকতে পারে। পিঁপড়েরা এক বিশেষ প্রক্রিয়ায় শ্বাসের কাজ চালায়। খুব বেশি প্রতিকূল পরিস্থিতিতে এরা শ্বাস বন্ধ করে রাখতে পারে। এমনকি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য ডুব দিয়েও থাকতে পারে!
৯। পিঁপড়ারা জ্ঞানীঃ
জানেন কি পবিত্র বাইবেলে পিঁপড়াদের জ্ঞানী বলা হয়েছে। বাইবেলে আছে, “তুমি অলস, তবে পিঁপড়ার কাছে যাও। তার উপায় বিবেচনা কর, জ্ঞানী হও”। পিঁপড়াদের সাধারণত পরিশ্রমী ও অধ্যাবসায়ের উদাহরণ হিসেবে ব্যাবহার করা হয়।
১০। এসিড ছুঁড়ে আত্মরক্ষাঃ
কিছু পিঁপড়া নিজেদের আত্মরক্ষার জন্য এসিড ছুঁড়ে দেয়! আমাজনের কিছু পিঁপড়ার প্রজাতি প্রতিকূল পরিস্থিতিতে নিজেদের বাঁচাতে ফর্মিক এসিড ছুঁড়ে দেয়!
ছোট্ট প্রাণী পিঁপড়া সম্পর্কে অজানা কিছু মজার তথ্য জানলেন তো। বাসায় এরপর পিঁপড়া দেখলেই নিশ্চয়ই মনে পড়বে এই তথ্যগুলোর কথা।

Read more ...

বাংলাদেশের সামনে র‍্যাঙ্কিংয়ের ছয়ে ওঠার হাতছানি

প্রথম ম্যাচে পাত্তাই পায়নি শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশের সামনে স্রেফ অসহায় আত্মসমর্পণ করেছে। বাংলাদেশের জন্য সিরিজটা গুরুত্বপূর্ণ ছিল র‍্যাঙ্কিংয়ে নিজেদের অবস্থান ধরে রাখার ব্যাপারে। সিরিজের প্রথম ম্যাচে জেতা সব সময়ই গুরুত্বপূর্ণ। সে কাজটি সেরে বাংলাদেশ এখন সিরিজ জেতার সামনে। কী হবে যদি ২-১-এ সিরিজ জেতে বাংলাদেশ? কিংবা শ্রীলঙ্কাকে ৩-০তে ধবলধোলাই করে?
বাংলাদেশের সামনে এখন র‍্যাঙ্কিংয়ের ছয়ে ওঠে যাওয়ার হাতছানি। ছয় নম্বর জায়গাটি শ্রীলঙ্কারই। ফলে এই সিরিজের বাংলাদেশ দুইভাবে লাভবান হতে পারে—এক জয়ে। বাংলাদেশের রেটিং পয়েন্ট বাড়বেই না, শ্রীলঙ্কার পয়েন্টও কমবে।প্রথম ম্যাচ জেতার পর বাংলাদেশের রেটিং পয়েন্ট এখন ৯৩, শ্রীলঙ্কার ৯৭। দ্বিতীয় ওয়ানডে বাংলাদেশ জিতলে শ্রীলঙ্কার মোট পয়েন্ট কমলেও তা অবশ্য ভগ্নাংশের প্রভাব ফেলবে রেটিং পয়েন্টে। তখন শ্রীলঙ্কার পয়েন্ট ৯৭ থাকলেও বাংলাদেশের পয়েন্ট হয়ে যাবে ৯৫। আর বাংলাদেশ যদি ৩-০তে সিরিজ জেতে; তখন দুই দলেরই রেটিং পয়েন্ট হয়ে যাবে ৯৬। মোট পয়েন্টের সুবাদে ভগ্নাংশের ব্যবধানে এগিয়ে থাকায় বাংলাদেশ উঠে যাবে ছয়ে, শ্রীলঙ্কা নেমে যাবে সাতে।আগামী বিশ্বকাপে সরাসরি খেলতে বাংলাদেশকে ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত র‍্যাঙ্কিংয়ের আটের মধ্যে থাকতে হবে। র‍্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশ এখন সাতে। বিশ্বকাপে খেলার ব্যাপারটা মাথায় থাকবে কি না—এই সিরিজ শুরুর আগে মাশরাফি বলেছিলেন, ‘এটা সব সময়ই মাথায় থাকে। তবে শুধু ২০১৯ বিশ্বকাপ নিয়ে ভাবলে খেলোয়াড়দের জন্য চাপ হয়ে যাবে। যেভাবে খেলছে, সেটি সবাই উপভোগ করেছে, এটাই সবচেয়ে বেশি জরুরি। এখানেও তারা একইভাবে উপভোগ করবে। বড় বিষয় হচ্ছে, আমরা দেশের বাইরে খেলছি। গত বছরও আমরা সব ওয়ানডে খেলেছি দেশের মাটিতে। নিউজিল্যান্ডে সর্বশেষ যে তিনটি ওয়ানডে খেলেছি, প্রতিটিতে হেরেছি। এটা আমাদের জন্য অন্য রকম চ্যালেঞ্জ। আশা করি, উতরে যেতে পারব।’
মেহেদী মিরাজকে দলে নেওয়ার ব্যাপারে মন্তব্য করতে গিয়ে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান বলেছেন, ‘এই সিরিজটা যেহেতু আমাদের জন্য বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ, এ জন্য তাকে দলে নেওয়া হয়েছে।’


Read more ...

বিসিসিআইয়ের নতুন সংবিধানে আইপিএল নেই!

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) কমিটি অব অ্যাডমিনিস্ট্রেটর চূড়ান্ত করেছে বোর্ডের নতুন নিয়ম-নীতিমালা। তবে নতুন সংবিধানে উল্লেখ নেই কোনো ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের কথা। এ কারণে নেই ভারতের সবচেয়ে জনপ্রিয় টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট আইপিএল, এমনকি সৈয়দ মুশতাক আলী ট্রফিও। অধ্যায় পাঁচে ২৫ (২) ধারায় বলা হচ্ছে, পাঁচ সদস্যের সিনিয়র টুর্নামেন্ট কমিটি কাজ করবে রঞ্জি, ইরানি, দিলীপ, দেওধর, বিজয় হাজারে ও বিশ্ববিদ্যালয়ের টুর্নামেন্ট বিজি ট্রফি নিয়ে। সেখানে ভারতের কোনো টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট নিয়ে বলা হয়নি।
সংবিধানে এও বলা হয়েছে, বিসিসিআইয়ের এই নিয়মনীতি বাতিল করা যাবে না। তবে বিশেষ সাধারণ সভা (সিজিএম) বা বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) যদি ৭৫ শতাংশ সদস্য থাকে এবং তারা যদি নিয়ম সংশোধন করতে চায় তবেই সংবিধানে পরিবর্তন আসতে পারে। সিজিএম বা এজিমের ৩০ পূর্ণ সদস্যের কোরাম পূরণ হতে লাগবে ১০জন। এদের মধ্যে আটজনের ভোট সংবিধানে সংশোধন আনতে পারে। যদি সবাই উপস্থিত থাকে তবে ভোট লাগবে ২৩জনের।

বিসিসিআইয়ের অধীনে এখন দুটি ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট হয়। আইপিএল ও সৈয়দ মুশতাক আলী ট্রফি। সংবিধানে এই দুই টুর্নামেন্টের উল্লেখ না করা কি শুধুই ভুল? বিষয়টি তুলে ধরে ভারতের ডেকান ক্রনিকলস লিখেছে, ‌‘বিসিসিআই কি তাদের ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টটা বাতিল করে দিল? তাদের ওয়েবসাইটে যে পরিমার্জিত সংবিধান প্রকাশ করা হয়েছে, তো দেখে তো এমনই মনে হয়।
Read more ...

বিল গেটসই শীর্ষ ধনী, ট্রাম্পের পতন

ধনসম্পত্তিতে বিশ্বে নিজের শীর্ষস্থান ধরে রেখেছেন মাইক্রোসফটের সহপ্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস। মার্কিন সাময়িকী ফোর্বস গতকাল সোমবার বিশ্বের শীর্ষ ধনীদের তালিকা প্রকাশ করেছে।
এবারের তালিকায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বেশ বড় ধরনের পতন হয়েছে। আগেরবারের চেয়ে ২২০ জনের পেছনে পড়ে বর্তমানে তাঁর অবস্থান ৫৪৪। তাঁর সম্পদের পরিমাণ ৩ দশমিক ৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। কমেছে ১ বিলিয়ন ডলার।
টানা চতুর্থবার প্রথম স্থানটি নিজের দখলে রেখেছেন বিল গেটস। তাঁর সম্পদ এখন ৮৬ বিলিয়ন ডলার।
তালিকায় এবার বিলিয়নিয়ারের সংখ্যা রেকর্ড সংখ্যক, ২ হাজার ৪৩ জন, যা গত বছরের তুলনায় ১৩ শতাংশ বেশি। সাময়িকীটির ৩১ বছরের হিসাবে এবারই প্রথম বিলিয়নিয়ারের সংখ্যা এত বেশি বেড়েছে। গত ২৩ বছরে ১৮ বারই বিল গেটস সারা বিশ্বের ধনীদের তালিকায় নিজের অবস্থান ধরে রেখেছেন। তাঁর মোট সম্পদের পরিমাণ ৮৬ বিলিয়ন ডলার।
Read more ...

দীপিকার গডফাদার!

হলিউডে যেতে না যেতেই একজন গডফাদার জোগাড় করে ফেলেছেন ভারতীয় অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোন। কী করবেন, কোথায় যাবেন দীপিকা, সেসব সিদ্ধান্তের ওপর এখন দাদাগিরি ফলাচ্ছেন সেই ভদ্রলোক। এমনকি হলিউডে দীপিকা কোন ছবিতে অভিনয় করবেন আর কোন পরিচালককে ‘না’ বলে দিতে হবে, সেসবও ঠিক করে দেন সেই দাদা!

‘ত্রিপল এক্স : রিটার্ন অব জ্যান্ডার কেজ’ ছবিতে দীপিকা পাড়ুকোন অভিনয় করেন অভিনেতা ভিন ডিজেলের সঙ্গে। এখন হলিউড বিষয়ে দীপিকার যেকোনো সিদ্ধান্তের দিকনির্দেশনা দিচ্ছেন তিনি। ছবিটির প্রচারণার সময়ে দীপিকা বলেছিলেন, সুযোগ এলে আবারও ডিজেলের সঙ্গে কাজ করতে চান। আভাস মিলেছে, আরও একটি অ্যাকশন অ্যাডভেঞ্চারে জুটি বাঁধবেন এই দুই অভিনয়শিল্পী। একটি সূত্র জানিয়েছে, পেশাদার সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে ডিজেলের ওপর পূর্ণ আস্থা রয়েছে দীপিকার। সূত্রটি বলেছে, ‘ডিজেলকে মাথায় তুলে রেখেছেন দীপিকা। যেকোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় ডিজেলকে জিজ্ঞেস করে নেন। এমনকি নিজের ব্যক্তিগত নানা পরামর্শও নেন দীপিকা।’

ভিনের সঙ্গে নিজের সমীকরণের কথা জানতে চাইলে ‘দ্য এলেন ডিজেনারস’-এর অনুষ্ঠানে দীপিকা বলেন, তাঁর দারুণ কজন বন্ধু রয়েছেন। ডিজেল তাঁদের অন্যতম। মিড ডে
Read more ...